হোম রাজনীতি নেত্রীকে তিলে তিলে মারার ব্যবস্থা করা হচ্ছে: আমীর খসরু

নেত্রীকে তিলে তিলে মারার ব্যবস্থা করা হচ্ছে: আমীর খসরু

23
0

বিটিএন২৪ রিপোর্ট: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা ও জামিন না দিয়ে জেলখানায় রেখে তিলে তিলে মারার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

তিনি বলেন, খুনের আসামি জামিন পাচ্ছে, ধর্ষক জামিন পাচ্ছে, কিন্তু বেগম খালেদা জিয়া জামিন পাচ্ছেন না। দেশের মানুষের কাছে এটা দিনের আলোর মতো পরিষ্কার হয়ে গেছে যে, সবাই জামিন পাবে বেগম জিয়া জামিন পাবেন না।

আজ বৃহস্পতিবার ‘প্রতিহিংসার রাজনীতি ও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয়তাবাদী প্রজন্ম ৭১ নামের একটি সংগঠন এ সভার আয়োজন করে।

আমীর খসরু বলেন, দেশে কোনো বিচারব্যবস্থা নেই। সরকারের মন্ত্রীরা বলে দেন মামলার রায় কবে হবে। ১০ দিনে বিচার হবে না ১৫ দিনে হবে এটা কি তারা বলতে পারেন? এর শাস্তি হয়ে যাবে ওর শাস্তি হয়ে যাবে এটা তারা বলে দেন। দেশের বিচারব্যবস্থার একটি ধারা আছে। ডিউ প্রসেস অব ল’ এই প্রসেসে কার কী হবে সেটা বিচার বিভাগ সিদ্ধান্ত নেবে। কিন্তু আজ সব বলা হয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, যে দেশে প্রধান বিচারপতিকে চাকরি থেকে জোর করে অপসারণ করা হয় এবং মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে দেশ ত্যাগ করতে বাধ্য করা হয়, যে দেশে তারেক রহমানের পক্ষে রায় দেয়ার কারণে বিচারপতিকে চাকরিচ্যুত হতে হয়, যে দেশে মন্ত্রীরা কার কী বিচার হবে আগেভাগে বলে দেন, সেখানে আপনারা কীভাবে বিচার আশা করেন?

খসরু আরও বলেন, বেগম খালেদা জিয়া বিচার পাবেন না। আপনাদের প্রস্তুত থাকতে হবে, দেশবাসীকে প্রস্তুত থাকতে হবে। দেশের মালিকানা আপনাদের হাতে তুলে নিতে হবে।

তিনি বলেন, কোরবানির পর থেকে পেঁয়াজের দাম শুরু হয়েছে ৬০ টাকা, ৭০ টাকা, ৮০ টাকা, ১০০ টাকা, এখন ১৪০ টাকা। আপেলের চেয়ে পেঁয়াজের দাম বেশি হয়ে গেছে, এটা তো মশকরা হওয়ার কথা, মশকরা হবেই।

তিনি আরও বলেন, মশকরা করে অনেকেই বলছে যে এত দাম দিয়ে খাওয়ার কী দরকার? তাহলে কাল ডিমের দাম বেড়ে গেলে ডিম খাবেন না, তেলের দাম বেড়ে গেলে তেল খাবেন না, চালের দাম বেড়ে গেলে চাল খাবেন না। এর চেয়ে সহজ পন্থা পৃথিবীতে আর কিছু আছে?

খসরু বলেন, দেশ কোথায় গিয়ে দাঁড়িয়েছে জনগণকে কোনো তোয়াক্কা না করেই এসব কাজ করা হচ্ছে। আমি আমরা (সরকার) জনগণের তোয়াক্কা করি না, আপনারদের ভোটের দরকার নেই। যাদের জনগণের কাছে কোনো জবাবদিহিতা নেই, যারা জনগণের মালিকানা নিয়ে ঘুরাচ্ছে, তাদের কাছে কে পেঁয়াজ খেতে পারলো আর কে পেঁয়াজ খেতে পারল না এই বিষয়ে কোনো মাথাব্যথা নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আয়োজক সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ঢালী আমিনুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমতুল্লাহ, নিপুন রায় চৌধুরী, সাবিরা সুলতানা, জাতীয়তাবাদী তাঁতী দলের যুগ্ম আহ্বায়ক ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।