হোম অর্থনীতি টানা চার কার্যদিবস ঊর্ধ্বমুখী শেয়ারবাজার

টানা চার কার্যদিবস ঊর্ধ্বমুখী শেয়ারবাজার

টানা চার কার্যদিবস ঊর্ধ্বমুখী শেয়ারবাজার

বিটিএন২৪ রিপোর্ট: পতনের ধারা কাটিয়ে কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে দেশের শেয়ারবাজার। গত সপ্তাহের শেষ তিন কার্যদিবসের ধারাবাহিকতায় চলতি সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস সোমবার (১১ নভেম্বর) দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সবকটি মূল্য সূচক বেড়েছে। এর মাধ্যমে টানা চার কার্যদিবস ঊর্ধ্বমুখী থাকল দেশের শেয়ারবাজার।

রোববার (১০ নভেম্বর) ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষে শেয়ারবাজারের লেনদেন বন্ধ ছিল। ফলে সোমবার চলতি সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস বা লেনদেন দিবস ছিল শেয়ারবাজারের জন্য। এ দিন দুই বাজারেই সবকটি মূল্য সূচক বাড়লেও ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া যে কয়টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে, কমেছে তার থেকে বেশি।

দিনভর বাজারটিতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১৩৫টি প্রতিষ্ঠান শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৪৯টির। আর ৪৭টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমার পরও ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স ৯ পয়েন্ট বেড়ে ৪ হাজার ৭৮১ পয়েন্টে ওঠে এসেছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ ১ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৯০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর ডিএসই-৩০ সূচক ৬ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৬৬৪ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

সবকটি মূল্য সূচক বাড়লেও ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ কিছুটা কমেছে। দিনভর বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ২৯৬ কোটি ৬৩ লাখ টাকা। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৩৬৭ কোটি ৯ লাখ টাকা। সে হিসাবে লেনদেন কমেছে ৭০ কোটি ৩৬ লাখ টাকা।

বাজারটিতে টাকার পরিমাণে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে ন্যাশনাল টিউবসের শেয়ার। কোম্পানিটির ১২ কোটি ১৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্সের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১০ কোটি ২৭ লাখ টাকার। ৯ কোটি ৮৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে জিনেক্স ইনফোসিস।

এছাড়া লেনদেনের শীর্ষ ১০ কোম্পানির মধ্যে রয়েছে- উত্তরা ব্যাংক, ফরচুন সুজ, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যাল, খুলনা পাওয়ার কোম্পানি, বঙ্গজ লিমিটেড, সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজ এবং রূপালী লাইফ।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৩৭ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ হাজার ৫২০ পয়েন্টে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৩৪ কোটি ১৪ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেয়া ২২৯ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৯৩টির, কমেছে ৯৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৯টির দাম।