হোম অর্থনীতি চাহিদা বেড়েছে ‘পঁচা’ শেয়ারের

চাহিদা বেড়েছে ‘পঁচা’ শেয়ারের

15
0
চাহিদা বেড়েছে ‘পঁচা’ শেয়ারের
চাহিদা বেড়েছে ‘পঁচা’ শেয়ারের

বিটিএন২৪ রিপোর্ট: হঠাৎ করেই বিনিয়োগকারীদের মধ্যে ‘জেড’ গ্রুপ বা পঁচা কোম্পানির শেয়ারের চাহিদা বেড়েছে। ফলে গত সপ্তাহজুড় সার্বিক শেয়ারবাজারে মন্দা বিরাজ করলেও দাম বাড়ার ক্ষেত্রে দাপট দেখিয়েছে জেড গ্রুপের বেশ কয়েকটি কোম্পানি।

সপ্তাহটিতে দাম বাড়ার শীর্ষ দশটি কোম্পানির তালিকার ছয়টি স্থানই দখল করেছে জেড গ্রুপের প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে শীর্ষ তিনটি স্থানই রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে বিনিয়োগকারীদের কোনো লভ্যাংশ দিতে না পারা কোম্পানির দখলে।

শেয়ারের দাম বাড়ার ক্ষেত্রে আধিপত্য দেখানো জেড গ্রুপের কোম্পানিগুলোর মধ্যে রয়েছে- মেঘনা কনডেন্সড মিল্ক, মেঘনা পেট, সমতা লেদার, ইমারেল্ড অয়েল, ইনফরমেশন সার্ভিসেস এবং অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ।

এর মধ্যে বিনিয়োগকারীদের কাছে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে চাহিদার শীর্ষে ছিল মেঘনা কনডেন্সড মিল্ক। ফলে সপ্তাহজুড়ে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) এই কোম্পানিটির শেয়ার মূল্যে বড় ধরনের উত্থান ঘটেছে।

শেয়ার মূল্য বড় ধরনের উত্থান হওয়ায় বিনিয়োগকারীদের একটি অংশ কোম্পানিটির শেয়ার বিক্রি করতে রাজি হননি। ফলে সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৫৪ লাখ ৭৩ হাজার টাকা। আর প্রতি কার্যদিবসে গড়ে লেনদেন হয়েছে ১০ লাখ ৯৪ হাজার টাকা।

এদিকে কোম্পানিটির শেয়ার দাম সপ্তাহজুড়ে বেড়েছে ১৭ দশমিক ৭৩ শতাংশ। টাকার অঙ্কে বেড়েছে ৩ টাকা ৬০ পয়সা। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শেষে কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারের দাম দাঁড়িয়েছে ২৩ টাকা ৯০ পয়সা, যা আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ২০ টাকা ৩০ পয়সা।

কনডেন্সড মিল্কের পর গত সপ্তাহে বিনিয়োগকারীদের পছন্দের তালিকায় ছিল মেঘনা পেট। সপ্তাহজুড়ে এই কোম্পানিটির শেয়ার দাম বেড়েছে ১৫ দশমিক ৫২ শতাংশ। এর পরেই রয়েছে সমতা লেদার। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার দাম বেড়েছে ১৩ দশমিক ২৬ শতাংশ।

এছাড়া গত সপ্তাহে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহের শীর্ষ ১০ কোম্পানির তালিকায় থাকা ইস্টার্ন কেবলসের ১২ দশমিক ৮২ শতাংশ, ইমারেল্ড অয়েলের ৭ দশমিক ২৩ শতাংশ, ইনফরমেশন সার্ভিসেসের ৫ দশমিক ৫৪ শতাংশ, অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজের ৫ দশমিক ৪৭ শতাংশ, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্সের ৪ দশমিক ৬৮ শতাংশ, কে অ্যান্ড কিউ’র ৪ দশমিক ৪৪ শতাংশ এবং গ্রিন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্সের ৪ দশমিক ৩২ শতাংশ দাম বেড়েছে।