হোম জাতীয় ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে, জানালেন প্রধানমন্ত্রী

ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে, জানালেন প্রধানমন্ত্রী

62
0
ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে, জানালেন প্রধানমন্ত্রী
জাতীয় শ্রমিক লীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন প্রধানমন্ত্রী।

বিটিএন২৪ রিপোর্ট: ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় ও দুর্যোগ পরবর্তী সকল কার্যক্রমের ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  

শনিবার (৯নভেম্বর) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শ্রমিক লীগের ১২তম জাতীয় সম্মেলন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে এ কথা জানান প্রধানমন্ত্রী। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দোয়া করবেন ঝড়ে যেন কোনো ক্ষয়ক্ষতি না হয়। ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলা ও দুর্যোগ পরবর্তী সব কার্যক্রমের ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। 

তিনি বলেন, আমাদের সব রকম প্রস্তুতি নেওয়া আছে। ঝড় পরবর্তী সময়ে ত্রাণসহ সব প্রস্তুতিও আমাদের রয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের উদ্দেশ্যই জনগণের সেবা করা। জনগণের সেবার জন্য সরকার সকল প্রকার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে এবং আগামীতেও করবে।

এদিকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৭ নম্বর বিপদ সঙ্কেতের পরিবর্তে ১০ নম্বর মহাবিপদ সঙ্কেত দেখিয়ে যেতে বলেছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর।

উপকূলীয় জেলা ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ১০ নম্বর মহাবিপদ সঙ্কেতের আওতায় থাকবে।

চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরকে ৬ নম্বর বিপদ সঙ্কেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ১০ নম্বর মহাবিপদ সঙ্কেত দেখাতে বলা হয়েছে।

উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ১০ নম্বর মহাবিপদ সঙ্কেতের আওতায় থাকবে।

বাংলাদেশ আবহাওয়া বিভাগের (বিএমডি বা বাংলাদেশ মেট্রোলজিক্যাল ডিপার্টমেন্ট) বিজ্ঞানীরা বলেছেন, উপকূলের ১৯ জেলায় ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাবে। এর মধ্যে ১৩ জেলা বেশি ঝুঁকিতে। ঝড়ের সঙ্গে উপকূলীয় জেলা এবং অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরাঞ্চলে স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৫ থেকে ৭ ফুট উচ্চতার বায়ুতাড়িত জলোচ্ছ্বাস হতে পারে। 

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্যানুযায়ী, ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আজ সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাতের মধ্যে বাংলাদেশের উপকূলে আঘাত হানতে পারে। 

এদিকে ক্ষয়-ক্ষতি এড়াতে উপকূলবাসীকে নিকটস্থ সাইক্লোন শেল্টারগুলোতে আশ্রয় নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। শনিবার (৯ নভেম্বর) দুপুর ২টার মধ্যে উপকূলবাসীকে নিকটস্থ সাইক্লোন শেল্টারগুলোতে আশ্রয় নিতে বলেছেন প্রতিমন্ত্রী মো. এনামুর রহমান। 

বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাসকল্পে পূর্বপ্রস্তুতি, সাড়াদান এবং উদ্ধার কার্যক্রমে করণীয় নির্ধারণ সংক্রান্ত সভা শেষ সাংবাদিকদের এ কথা জানান প্রতিমন্ত্রী।